Q. মুঘল সম্রাট জিন্দাপীর নামে পরিচিত

Answer: ঔরঙ্গজেব

Related GK

Q. মনসবদারি প্রথা কে চালু করেন

  1. জাহাঙ্গীর
  2. শেরশাহ
  3. আকবর
  4. শাহজাহান

Q. 'ফতেপুর সিক্রি' কে প্রতিষ্ঠা করেন?

  1. হুমায়ুন
  2. আকবর
  3. ঔরঙ্গজেব
  4. জাহাঙ্গীর

Q. 'কাইজার ই হিন্দ' কাকে বলা হত?

  1. পন্ডিত জহরলাল নেহেরু
  2. মহাত্মা গান্ধী
  3. দাদাভাই নওরোজি
  4. নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু

Q. 1946 সালে ক্যাবিনেট মিশনের প্রধান পদাধিকারী কে ছিলেন ?

  1. স্যার স্টাফোর্ড ক্রিপস
  2. এ ভি আলেকজান্ডার
  3. লর্ড মাউন্টব্যাটেন
  4. পেথিক লরেন্স

Q. Servants of India society কে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন

  1. দাদাভাই নওরোজি
  2. গোপালকৃষ্ণ গোখলে
  3. ঋষি অরবিন্দ ঘোষ
  4. অ্যানি বেসান্ত

Q. কোন আন্দোলনের সময় থেকে বল্লভ ভাই প্যাটেল সর্দার নামে ভূষিত হন

  1. স্বদেশী আন্দোলন
  2. আইন অমান্য আন্দোলন (civil disobedience movement)
  3. বারদৌলি আন্দোলন
  4. ভারত ছাড়ো আন্দোলন (quit India movement)

Q. প্যারিসের সন্ধি কবে হয়?

Answer: 1763 খ্রিস্টাব্দে

Note: প্যারিসের সন্ধির ফলে ইউরোপের সপ্তবর্ষব্যাপী যুদ্ধের অবসান ঘটার পাশাপাশি কর্নাটকের তৃতীয় যুদ্ধের (1756-63) অবসান ঘটে এবং ভারতে ইংরেজ ও ফরাসিদের মধ্যে শান্তি স্থাপিত হয়।

Q. ইংরেজরা ভারতের সর্ব প্রথম কোথায় বাণিজ্যকুঠি গড়ে তোলেন?

Answer: সুরাটে

Note: ইংরেজরা ভারতের সুরাটে তাদের প্রথম বাণিজ্য কুঠি স্থাপন করে 1613 খ্রিস্টাব্দে।

Q. পর্তুগিজ নাবিক ভাস্কো দা গামা ভারতে কবে আসে ?

Answer: 1498 খ্রিস্টাব্দে

Note: ভারতে সর্ব প্রথম বাণিজ্য করতে আসে পর্তুগিজ নাবিক ভাস্কোদাগামা, 1498 খ্রিস্টাব্দে তিনি ভারতের কালিকট বন্দরে পৌঁছায়।

Q. ইংরেজ সেনাপতি রবার্ট ক্লাইভ কবে চন্দননগরের ফরাসি ঘাঁটি দখল করে?

Answer: 23 March 1757

Note: আলিনগরের সন্ধির কিছুদিন পরে চন্দননগর ঘাঁটি দখলের মাধ্যমে বাংলা থেকে ফরাসিদের আধিপত্য চূর্ন হয়।

Q. সতীদাহ প্রথা কে রদ করেন

  1. লর্ড উইলিয়াম বেন্টিঙ্ক
  2. লর্ড ডালহৌসি
  3. লর্ড ক্যানিং
  4. লর্ড কার্জন

Q. আলিনগরের সন্ধি কবে ক্ষরিত হয়?

Answer: 9th ফেব্রুয়ারি 1757

Note: 1756 খ্রিস্টাব্দের 20 june নবাব সিরাজউদ্দৌলা ব্রিটিশদের হারিয়ে কলকাতা দখল করে এবং কলকাতার নাম পরিবর্তন করে আলিনগর রাখেন। রবার্ট ক্লাইভ ও অ্যাডমিরাল ওয়াটসনের নেতৃত্বে ব্রিটিশ কোম্পানি কলকাতা পুনর্দখল করে। সিরাজউদ্দৌলা পুনরায় কলকাতা অভিযান করেন কিন্তু এবার ব্যর্থ হন এবং আলিনগরের সন্ধি স্বাক্ষরিত করেন। এই সন্ধির শর্ত অনুসারে ইংরেজরা বিনাশুল্কে বাণিজ্য করার, কলকাতায় দুর্গ নির্মাণ ও নিজেদের মুদ্রা প্রচলনের অধিকার পায়।